অনলাইন লোন নিন ৫ লাখ টাকা | যেভাবে Online loan নিবেন

অনলাইন লোন নিতে চান অনেকে। ব্যক্তিগত সমস্যা কিংবা পারিবারিক যেকোন বিপদকালীন সময়ে লোন একটি ভালো মাধ্যম হিসেবে কাজ করে। কিন্তু অনলাইন লোন কতটা কার্যকরী? বা অনলাইন লোন কি সত্য? Online loan কিভাবে নিবো? অনলাইন লোন নিতে কি কি ডকুমেন্ট লাগবে? Online loan নেওয়ার নিয়ম ইত্যাদি বিষয়ে জানতে চান অনেকে। তাই আজকের পোস্টে এ সমস্ত বিষয়ে তুলে ধরার চেষ্টা করব।

অনলাইন লোন

ঘরে বসে মোবাইল ফোনে লোনের আবেদন করে নগদ অর্থ হাতে পাওয়াকে অনলাইন লোন (Online loan) বলে চেনা হয়। অনলাইন লোন কতটা কার্যকরী? চলুন জেনে নিন। সব ধরনের Online loan যে মিথ্যা সেটা কিন্তু নয়। উদাহরণস্বরূপ মোবাইলে ইর্মাজেন্সি ব্যালেন্স (লোন), বিকাশ লোন ইত্যাদি। তবে বর্তমান সময়ের অধিকাংশ অনলাইন লোন হলো প্রতারণা। তাই Online loan নেওয়ার পূর্বে সাবধান হওয়া জরুরি।

 

অনলাইন লোন অ্যাপ ২০২৩

অনলাইন লোন অ্যাপ

মোবাইল ফোনে একটি মাত্র অ্যাপ ইন্সটল বা ডাউনলোড করেই পাওয়া যাচ্ছা মোটা অংকের অনলাইন লোন। আজকাল Online loan নামে প্রতারণার শিকার হতে দেখা গেছে অনেকে। প্রতারণা চক্র অনলাইনে লোন দেওয়া প্রলোভন দেখিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে ব্যক্তিগত তথ্য। পরে টাকা পরিশোধ করতে না পারলে শুরু হয় সিন্ডিকেট বা ব্ল্যাকমেল। এমন প্রতারণায় শিকার হয়ে, হয়রানি হতে দেখা যাচ্ছে অনেক তরুনকে।

কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়া লেখা করেন অলি উল আলম জয়। বাড়ি গাইবান্ধা, ঢাকাতে আছেন বেশ কিছু দিন। হঠাত করে একদিন একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনের সাথে পরিচিত হোন জয়। যেখান থেকে ইচ্ছে করলেই পাওয়া যাবে মোটা অংকের ঋণ। বাড়ি থেকে টাকা পাঠাতে দেরি হচ্ছে তাই শুরু করেন অ্যাপস নিবন্ধন। তারপর গঠতে থাকে একের পর এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা।

আরোও পড়ুনঃ ৭টি প্যাসিভ ইনকাম আইডিয়া ২০২৩

জয় জানান “আমি ২,০০০ টাকার লোনের জন্য আবেদন করে। কিন্তু আমাকে দিচ্ছে ১,৪০০ টাকা। বাকি ৬০০ টাকা ব্যাট বা ফি দিতে হবে। এভাবে তারা আমার কাছ থেকে দাবী করছে ২,০০০ হাজার টাকা। এমন পরিস্থিতি বেশিরভাগ শিকার হচ্ছেন ১৬ থেকে ১৮ বছরের তরুনেরা। তারা প্রথম দিকে এটি বুঝতে পারে না। অন্যদিক লোনের টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হলে শুরু হয় সিন্ডিকেট এবং অপব্যবহার হয় ব্যক্তিগত তথ্যের।

কেউ যদি ৭ দিনের মধ্যে লোনের টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হয় তাহলে তাকে পরবর্তী দিন গুলোতে জরিমানা দিতে হচ্ছে ২৫ টাকা করে। যা মেইন ব্যালেন্সের সাথে যুক্ত হতে থাকে। এভাবে কখনও ২৫ টাকা আবার কখনও ৫০ টাকা করে জরিমানা গুনতে হচ্ছে লোন দাতাদের। মূলত ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, টেলিগ্রাম, ইন্সটাগ্রাম সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যে এ ধরনের অ্যাপের প্রচার হচ্ছে বলে জানান জয়।

আরোও পড়ুনঃ অনলাইনে ওষুধের দাম বা মূল্য জানুন ১ মিনিটে

সহজে বিনা জামানতে লোন নেওয়া যাবে হাজার হাজার টাকা। এমন টোপ দিয়ে ঋণের জালা জড়িয়ে পেলে তরুনদের। তারপর কৌশলে হাতিয়ে নিচ্ছে ব্যক্তিগত তথ্য। বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে ‘এ ধরণের অ্যাপের কোন বৈধতা নেই’ তাই এসব অ্যাপস থেকে সর্তক থাকতে বলা হচ্ছে তরুনদের।

★শেখ আব্দুর রব চৌধুরি ইমন
বঙ্গভাষা ডটকম ঢাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

10 Comments

  1. Its like you read my mind! You appear to know so much about this, like you wrote the book in it or something. I think that you can do with a few pics to drive the message home a little bit, but other than that, this is fantastic blog. A great read. I’ll certainly be back.

  2. মোহাম্মদ গোলাম ইমরান says:

    মোঃ গোলাম ইমরান ,জহির উদ্দিন ,বেল বাহাতন, পিং না, সরিষাবাড়ী জামালপুর।লোন নিতে চাই