এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সঠিক নিয়ম ২০২৪

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সঠিক নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন আজকের পোস্ট। আপনাদের ভিতরে অনেকেই আছেন যাদের এসএসসি রোজাল্ট খারাপ এসেছে। কিন্তু আপনার মনে হচ্ছে আপনি এর থেকে আরোও ভালো রেজাল্ট করতেন। অর্থাৎ আপনার আশানুরূপ ফল পান নি। এমতাবস্থায় আপনার রেজাল্ট আরোও একবার পুনঃনিরীক্ষণ/পরিবর্তন করাতে চাইলে আপনাকে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে হবে। 

আজকের পোস্টে আমরা আলোচনা করব কিভাবে ঘরে বসে অনলাইনে মাধ্যমে আপনার হাতে থাকা স্মার্ট ফোনটি ব্যবহার করে এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জের আবেদন করতে হয়। এবং কি কি শর্তাবলী প্রদান করলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ পরে আপনার রেজাল্টটি পরিবর্তন করতে পারবেন। নিচে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

 

কিভাবে এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জের আবেদন করবেন

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার জন্য শুরুতে আপনার টেলিটক সিমে প্রতি সাবজেক্ট ফি বাবদ ১৫০ টাকা করে ব্যালেন্স রাখুন (সার্ভিস ফি প্রযোজ্য হবে)। তাহলে বোর্ড চ্যালেঞ্জ শুরু করতে পারবেন। এখন ফোনের Message অপশন থেকে RSC<Space>DHA<Space>Space>256987<Space>530 লিখে 16222 নাম্বারে Send করুন। তাহলে আপনার প্রথমিক বোর্ড চ্যালেঞ্জ আবেদনটি সাবমিট হয়ে যাবে। 

 

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সম্পূর্ণ প্রসেস

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জে করার জন্য আপনাকে প্রত্যেক বিষয়ে ১৫০ টাকা পেমেন্ট করতে হবে। অর্থাৎ আপনি যে কয়টি বিষয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করবেন সেই অনুযায়ী টাকা আপনার টেলিটক সিমে রিচার্জ অথবা ফ্লেক্সিলোড করে রাখতে হবে এবং অবশ্যই এসএমএস সার্ভিস ফি বাবদ অতিরিক্ত ৪/৫ টাকা বেশি রাখতে হবে। 

আরোও পড়ুন: মার্কশিটসহ SSC রেজাল্ট চেক করুন

উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি এক বিষয়ে এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জে করেন তাহলে আপনাকে ৫৪ টাকা ব্যালেন্সে রাখতে হবে। আর দুই বিষয়ে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে চাইলে ৩০৪ টাকা ব্যালেন্সে রাখতে হবে।  এখন আপনি যে কয়টি বিষয়ে এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জে করবেন সেই অনুযায়ী টাকা রিচার্জ করুন ।

টাকা রিচার্জ করার পর এখন এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জে করার জন্য আপনি আপনার মোবাইল ফোন থেকে মেসেজ অপশনে গিয়ে ‘Start chat’ অপশনে ক্লিক করুন। তারপর To লেখা অপশনে ক্লিক করে 16222 লিখুন এবং Enter/Ok করুন। তাহলে নিচে Text box অপেন হয়ে যাবে। এখন Text অপশনে RSC লিখে স্পেস দিন। তারপর বড় হাতের অক্ষরে আপনার বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর লিখুন এবং স্পেস দিয়ে আপনার রোল নাম্বারটি বসিয়ে আবারও স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখুন। উদাহরণস্বর, RSC DHA 256987 101। অথবা RSC<Space>DHA<Space>123456<Space>101 Send to 16222 নম্বরে।

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সঠিক নিয়ম

মনে রাখবেন এক সাথে একের অধিক বিষয়ে চ্যালেঞ্জ করার জন্য বিষয় কোডের পর কোড দিয়ে অন্য বিষয় কোড গুলো বসিয়ে দিন। যেমন: RSC DHA 256987 RSC DHA 256987 101,102,103 ইত্যাদি। 

তাহলে ফেরতি এসএমএস আপনার কাছে আবেদন কনফার্মেশনের জন্য একটি মেসেজ ও পিন নম্বর আসবে। এখন আবেদন চুড়ুন্ত করতে ফি প্রদান করতে হবে। 

 

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ ফি প্রদান করার নিয়ম

প্রথমিকভাবে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার পর আবেদন চূড়ান্ত করতে ফি প্রদান করতে হবে। এখন ফি প্রদান করার জন্য আবারও ফোনের SMS অপশন থেকে টাইপ করুন: RSC<Space> YES<Space>Your pin<Space>Your contact number (RSC YES 75890657 01863****)

এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার সঠিক নিয়ম

অর্থাৎ RSC তারপর স্পেস দিয়ে YES লিখুন। তারপর আবারও স্পেস দিয়ে ফেরতি মেসেজে আসা পিন ও স্পেস দিয়ে আপনার কন্টাক্ট নম্বর দিয়ে Send করুন 16222 নম্বরে। তাহলে আপনার আবেদনটি চূড়ান্ত হবে।

 

কাদের বোর্ড চ্যালেঞ্জ জন্য আবেদন করা উচিৎ 

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করলে যেই আপনার নম্বর বেড়ে যাবে বা কমে যাবে বিষয়টি এমনটি নয়। বোর্ড চ্যালেঞ্জ এর মূল বিষয়বস্তু হচ্ছে খাতা পুনঃনিরীক্ষণ/পুনরায় যাচাই করা। অর্থাৎ আপনি যদি মনে করেন আপনার কোন একটি বিষয়ে ভালো পরিক্ষা দেওয়ার পরও সেই বিষয়ে কম নাম্বার বা কম মার্ক পেয়েছেন। এক্ষেত্রে আপনি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারবেন। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার পর পরীক্ষক পুনরায় আপনার খাতা যাচাই করে দেখবে কোথাও নাম্বার দিতে বা যোগ করতে ভুল হয়েছে কিনা। যদি কোন ভুল থাকে তাহলে আপনাকে পরিবর্তীত রেজাল্ট দিবে। কিন্তু যদি কোন ভুল না থাকে তাহলে পূর্বের ফলাফল বহাল থাকবে। 

এখন প্রশ্ন আসতে পারে তাহলে কি আমার বোর্ড চ্যালেঞ্জ করা উচিত? এই প্রশ্নের উত্তর আপনার নিজের কাছে। আপনার যদি ১০০% দৃঢ়তার সাথে মনে হয় আপনি কম মার্ক পেয়েছেন তাহলে আপনি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারেন। কিন্তু আপনার যদি মনোশক্তি কম হয় অর্থাৎ আত্নবিশ্বাস কম থাকে তাহলে বলবো বোর্ড চ্যালেঞ্জ না করাই ভালো। কেননা এতে আপনার অর্থের ক্ষতি ও পরীক্ষকের মূল্যবান সময় নষ্ট হবে। তাই এমন্তবস্থায় বোর্ড চ্যালেঞ্জ না করাই শ্রেয়। 

আশা করি, আর্টিকেলটি পড়ে আপনি এসএসসি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। এরকম আরোও গুরুত্বপূর্ণ কনটেন্ট পেতে চোখ রাখুন বঙ্গভাষা ওয়েবসাইটে। ধন্যবাদ!

https://youtu.be/JWi6jxBDWus?si=rz2GWCSXqXSigyuZ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 Comment