রেফার করে ইনকাম বিকাশ পেমেন্ট ২০২৩-২৪

রেফার করে ইনকাম বা রেফার করে অর্থ উপার্জন। এটি বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সহজ ফ্রিল্যান্সিং কাজ গুলোর অন্যতম। কোন অভিজ্ঞতা ছাড়াই রেফার কাজটি যেকেউ নতুন অবস্থায় শুরু করতে পারবেন। রেফার কাজটির সবচেয়ে সুবিধা জনক দিক হলো, আপনি কাজটি যেকোন নরমাল মোবাইল দিয়েও করতে পারবেন। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক রেফার করে ইনকামের জনপ্রিয় ৫টি ওয়েবসাইট সম্পর্কে।

 

পেওনিয়ার (Payoneer) থেকে রেফার করে ইনকাম করুন

পেওনিয়ার সম্পর্কে অনেকে জানেন। কিন্তু হয়ত এটি জানা নেই যে, পেওনিয়ার থেকে রেফার করে ইনকাম করা সম্ভব। হ্যাঁ, পেওনিয়ার রেফার করে প্রতি রেফারে ২,৫০০ টাকা পর্যন্ত আয় করতে পারবেন। এভাবে আপনি যত বেশি রেফার করবেন তত বেশি টাকা ইনকেম করবেন। পেওনিয়ার হলো একটি অনলাইন ভিত্তিক ভার্চুয়াল মোবাইল ব্যাংককিং কম্পানি। এই সাইটের সাহায্য আপনি ডলার লেনদেন করতে পারবেন। বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সারদের কাছে এটি একটি জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংককিং কম্পানি। 

আরোও পড়ুনঃ ৭টি প্যাসিভ ইনকাম আইডিয়া (মাসে আয় ৫০ হাজার টাকা)

পেওনিয়ার থেকে রেফার করে প্রতি রেফারে ২,৫০০ টাকা উপার্জন করতে প্রথমে আপনাকে একটি ফ্রি পেওনিয়ার একাউন্ট তৈরি করতে হবে। পেওনিয়ার একাউন্ট তৈরি ও রেফার প্রসেস নিচে দেখানো হলো।

 

পেওনিয়ার একাউন্ট খোলার নিয়ম

পেওনিয়ার একাউন্ট খুলতে প্রথমে এই লিংকে ক্লিক করুন। তাহলে আপনি পেওনিয়ার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে পৌঁছে যাবেন। সেখানে Get started একটা অপশন পাবেন। তাতে ক্লিক করে পেওনিয়ার একাউন্ট খুলতে হবে। Get started এ ক্লিক করার পর অনেক গুলো অপশন দেখতে পাবেন।

পেওনিয়ার রেফার করে ইনকাম

সেখান থেকে আপনি কেন পেওনিয়ার একাউন্ট তৈরি করতে চাচ্ছেন সেটি সিলেক্ট করুন। যদি আপনি একজন ফ্রিল্যান্সার হয়ে থাকেন বা মার্কেটপ্লেস থেকে টাকা লেনদেনের জন্য একাউন্ট খুলতে চান তাহলে প্রথম অপশন Freelancer or online professional সিলেক্ট করুন। তারপর আরেকটি পেইজ Open হবে। সেখানে দুটি অপশন দেখতে পাবেন। সেখান থেকে ১ম অপশনটি সিলেক্ট করুন। এরপর আপনার সামনে কিছু MCQ শো করবে।

অর্থাৎ আপনি মাসে কত টাকা পর্যন্ত লেনদেন করবেন। সেখান থেকে অনুমানিক হিসেবটা সিলেক্ট করুন। অথবা ২য় অপশন ও সিলেক্ট করতে পারেন। তাহলে Register অপশন দেখতে পাবেন। এখন Register এ ক্লিক করুন। 

রেফার করে ইনকাম পেওনিয়ার রেজিস্টার

Register এ ক্লিক করার পর আপনার সামনে নতুন একটি ফর্ম Open হবে। সেখানে আপনার NID ও কারেন্ট বিল অনুযায়ী নাম, জন্ম তারিখ সহ ইত্যাদি তথ্য দিতে হবে। (নিজের নাম কারেন্ট বিল না থাকলে পিতা, মাতা বা পরিবারের অন্য যেই সদস্যের নামে আছে তার তথ্য দিয়ে একাউন্ট করুন) আর আপনার যদি কোন প্রতিষ্ঠান থাকে তাহলে বিজনেস তথ্য দিয়ে একাউন্ট করতে হবে। 

সব গুলো তথ্য দেওয়ার পর Submit এ ক্লিক করুন। তারপর জিমেইলে যাওয়া ভেরিফিকেশন লিংকে ক্লিক করে ভেরিফিকেশন সম্পন্ন করুন। এরপর একাউন্টে লগইন করে সেটিং থেকে NID ভেরিফাইড করে নিন। তাহলে আপনার একাউন্ট তৈরির কাজ সম্পন্ন হবে। 

 

পেওনিয়ার রেফার প্রসেসিং সিস্টেম 

এখন আপনি যদি এই একাউন্ট ব্যবহার করে মার্কেটপ্লেস থেকে ১০০$ নিয়ে আসতে পারেন তাহলে আপনি একটি ফ্রি ভার্চুয়াল মাস্টার কার্ড/ বা প্লাস্টিক কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন। যেটি ব্যবহার করে যেকোন মার্কেটপ্লেস থেকে ডলার লেনদেন বা ডোমেইন, থিম বা হোস্টিং ক্রয়, গুগল পেমেন্ট বা ফেসবুক এডস রান করা সহ যাবতীয় কাজ করতে পারবেন। এছাড়াও পেওনিয়ার ব্যবহারের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলে এটি থেকে আপনি বিকাশ বা উপায় একাউন্টে টাকা তুলতে পারবেন। 

আরোও পড়ুনঃ অনলাইন থেকে ফ্রিতে ইনকাম করুন। বিকাশে পেমেন্ট

এভাবে লেনদেন করতে করতে যদি আপনার একাউন্ট থেকে ১০০০$ লেনদেন হয় তাহলে আপনি একটা রেফার লিংক পাবেন। যেটি বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করে তারা যদি একাউন্ট করে সম পরিমান অর্থ লেনদেন করে। তাহলে আপনি ও সে উভয়ে (২৫$) ২,৫০০ টাকা করে রেফার বোনাস ইনকাম করতে পারবেন। 

পেওনিয়ার একাউন্ট তৈরি পড়ে বুঝতে না পারলে ভিডিও দেখতে পারেন। এতে করে নির্ভুল ভাবে একাউন্ট তৈরি করতে পারবেন। নিচে ভিডিও দেখুন। 

 

মাইক্রোজব সাইটে রেফার করে ইনকাম

বর্তমানে বাংলাদেশে অনেক গুলো মাইক্রোজব ওয়েবসাইট রয়েছে। যেখানে আপনি ছোট ছোট কাজ করে ইনকাম করতে পারবেন। যেমন ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব, ওয়েবসাইট ভিজিট, অ্যাপ ডাউনলোড ইত্যাদি। ঐসব সাইটে আরেকটি কাজ পাওয়া যায় সেটা হলো রেফার করে ইনকাম।

আপনি চাইলে ছোট কাজ গুলো করার পাশাপাশি রেফার করে ইনকাম কাজ গুলো করেও ইনকাম করতে পারেন। কয়েকটি বাংলাদেশি মাইক্রোজব ওয়েবসাইট হলো:

  • workupjob
  • Capital eWork

নিজে নিজে রেফার করে ইনকাম পদ্ধতি

নিজে নিজে রেফার বলতে আমি মেনুয়ালি রেফার সিস্টেম বুঝিয়েছি। অর্থাৎ বর্তমান মার্কেটপ্লেসে ১০০% রিয়েল রেফার ওয়েবসাইট বা অ্যাপ খুঁজে পাওয়া কষ্ট কর। তাই আপনি চাইলে নিজে নিজে রেফার এন্ড আর্নিং সিস্টেম তৈরি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। 

যেভাবে সিস্টেম তৈরি করবেন। রেফার করে ইনকাম করতে প্রথমে কয়েকটি অ্যাপ ডাউনলোড ফেসবুক গ্রুপে যুক্ত হয়ে যাবেন। তারপর গ্রুপে পোস্ট করবেন। কারো অ্যাপের জন্য 5* রেটিং ও রিভিউ প্রয়োজন হলে ইনবক্স করুন। কম খরচে করে দিবো। একথা বলে পোস্ট করলে অনেকে নক করবে। কারণ সবাই চায় তার নতুন অ্যাপে কয়েকটি ভালো ভালো রেটিং পড়ুক। তাই সামান্য কিছু অর্থ বিনিময় করে তারা রিটেং পেতে আপনাকে নক দিবে। তখন আপনি প্রতি রেফারের বিনিময় ৫ টাকা বা ১০ টাকা করে চার্জ করবেন।

তারা যদি কাজটি দিয়ে দেয়। তখন আপনি বিভিন্ন মাইক্রোজব ওয়েবসাইটে ঢুকে ২-৩ টাকায় অন্যদের দিয়ে কাজ গুলো করিয়ে নিতে পারবেন। এভাবে আপনি প্রতিদিন অনেক টাকা আয় করতে পারবেন। 

এছাড়াও আপনি চাইলে অন্যদের হয়ে তাদের কোর্স, সার্ভিস বা প্রডাক্ট বিক্রি করে ইনকাম করতে পারবেন। যদিও এটি অ্যাফিলিয়েটিং সিস্টেম। বাট এটিও ভালো কাজ দিবে। ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

আশা করি আজকের পোস্টটি আপনাদের উপকারে আসবে। এরকম আরোও ইনকাম রিলেটেড পোস্ট পেতে চোখ রাখুন বঙ্গভাষায়। পরবর্তী পোস্ট ফ্রিতে সুধু Sign up করে ইনকাম করার পদ্ধতি সম্পর্কে থাকবে। আশা করি সবাই পড়বেন। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 Comments

  1. Usually I do not read article on blogs however I would like to say that this writeup very compelled me to take a look at and do so Your writing taste has been amazed me Thanks quite nice post