অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করুন বিকাশে পেমেন্ট

কোন কাজ করা ছাড়াই অনলাইন থেকে ফ্রিতে ইনকাম করতে চাইলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য। আপনি যদি ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনযোগ সহকারে পড়তে থাকুন। 

 

অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম

অনেকে মনে করে থাকেন “অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করা সম্ভব না।” যা সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। আপনার যদি সামান্য পরিমান বুদ্ধি থাকে তাহলে আপনিও অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। তাও ১০০% হালাল উপার্জন। অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকামের সেরা উপায় গুলো নিচে বর্ণনা করা হলো। 

 

মাস্টার কার্ড দিয়ে অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করুন

আপনার কাছে যদি একটি ভার্চুয়াল ক্রেডিট কার্ড বা মাস্টার কার্ড থাকে। অথবা বাংলাদেশি ডুয়েল কার্ড কারেন্সি সার্পোটেড কোন ব্যাংক কার্ড থাকে। তাহলে আপনি অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 

এই কাজটি করার জন্য কোন ধরণের অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হবে না। সুধু মাত্র একটু বুদ্ধি খরচ করা প্রয়োজন। ধরে নিলাম আপনার কাছে একটি ভার্চুয়াল কার্ড রয়েছে। এখন যেটি করবেন। প্রথমে ফেসবুক অ্যাপ থেকে কয়েকটি ফেসবুক এডস, ইউটিউব ও ব্লগার গ্রুপে জয়ন করুন। তারপর সেখানে পোস্ট করুন। “আমার নিকট ডুয়েল কার্ড কারেন্সি কার্ড বা ভার্চুয়াল কার্ড রয়েছে। কারো যদি কোন ধরণের অনলাই সার্ভিস যেমন: ডোমেইন, হোস্টিং ক্রয় ও রিনিউ, ফেসবুক, গুগল অ্যাডভার্টাইজিং অথবা অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে কোন সার্ভিস ক্রয় করতে চান তাহলে আমাকে নক বা ইনবক্স করতে পারেন।” 

আরোও পড়ুনঃ ফ্রিতে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স করে অনলাইন থেকে আয় করুন

এমন পোস্ট করার পরে যাদের এসব সার্ভিস প্রয়োজন হবে তারা আপনাকে নক দিবে। তখন আপনি তাদের সাথে কথা বলে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে আপনার কার্ড থেকে পেমেন্ট করে তাদের থেকে বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

 

ডুয়েল কার্ড কারেন্সি দিয়ে ফ্রিতে ইনকাম করুন

সিস্টেমটি যেভাবে কাজ করবে

ধরুণ আমার ভার্চুয়াল কার্ড নেই। কিন্তু একটি ডোমেইন কিনা প্রয়োজন। যেখানে ডলার পে করতে হবে। এখন আমি আপনার পোস্টটি পাওয়ার পর আপনাকে নক করলাম। আপনি আমাকে বললেন “আপনার কত ডলার প্রয়োজন? আমি বললাম ১০ ডলার। তখন আপনি বলবেন প্রতি ডলারের দাম ১২০ টাকা করে রাখা যাবে।”

এখন আমি চিন্তা করে দেখলাম বর্তমানে ১$ সমান ১০২/১০৩ টাকা। সেখানে আপনি চাচ্ছেন ১$ সমান ১২০ টাকা। যেটা অনেকটা বেশি। কিন্তু আমার ডোমেইন কিনাটা খুবই জরুরি। তাই আমি এই ডিলে রাজি হয়ে গেলাম। 

এখন একটু চিন্তা করুন। আপনি ব্যাংক থেকে ১০২/১০৩ টাকায় পাচ্ছেন ১$। সেখানে আপনি আমার কাছে প্রতি $ ডলার বিক্রি করছেন ১২০ টাকা। প্রায় প্রতি ডলারে ১৭ টাকা লাভে। তাহলে আপনার ১০$ লাভ থাকছে ১৭*১০= ১৭০ টাকা। চিন্তা করে দেখুন তো, কোন কাজ না করে সুধু মাত্র আপনার কার্ড থেকে ডলার কিনা বেচা করে আপনি ৫-১০ মিনিটে আয় করছেন ১৭০ টাকা। এরকম যত বেশি অর্ডার নিতে পারবেন। তত বেশি আয় করতে পারবেন। তবে সর্বদা সৎ থাকার চেষ্টা করবেন। তাহলে একটা সময় অনেক বেশি কাস্টমার পাবেন। 

 

কেন মানুষ ডলার কিনবে? প্রমাণ কি?

দেখুন যারা মার্কেটেপ্লেসে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে তাদের কাছে ডলার খুবই বেশি মূল্যবান বা জরুরি একটি বস্তু। আর বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে একটা ডুয়েল কারেন্সি কার্ড পাওয়া একটু কষ্ট সাধ্য বা সময়ের ব্যাপার। যার কারণে নতুন ফ্রিল্যান্সাররা শুরু দিকে ডলার ক্রয় করে থাকে। আমি নিজেও একটি প্লে কন্সোল একাউন্ট ক্রয় করতে ২৫$ ডলার ৩৮০০ হাজার টাকায় একটি মার্কেটপ্লেস থেকে কিনে নিয়েছি। তাহলে বুঝতে পারছেন ২৫০০ টাকার জন্য ৩৮০০ টাকা ফে করতে হয়েছে। প্রায় ১৩০০ টাকা অতিরিক্ত পে করতে হয়েছে। 

সুতারাংঃ আপনি যদি একটি ডুয়েল কারেন্সি কার্ড বা ভার্চুয়াল কার্ড সংগ্রহ করতে পারেন। তাহলে আপনি কোন কাজ করা ছাড়াই অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

সর্তকতাঃ কারো সাথে আগ্রীম ডলার লেনদেন ডিল করবেন না। ধরকার হলে এডমিন ডিল বা ওয়েবসাইট ডিল করুন। কারো সাথে প্রতারণা করবেন না। 

 

রি সেলিং বিজনেস করে অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করুন

আপনার কাছে যদি ইনভেস্ট করার মতো টাকা থাকে। তাহলে অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এটি করতে প্রথমে Amazon, CJ অথবা Themeforest অ্যাফিলিয়েট প্রোগ্রামে জয়ন করুন। তারপর কিছু টাকা ইনভেস্ট করে আপনার অ্যাফিলিয়েট প্রাডাক্ট গুলো গুগল, ফেসবুক অথবা ইউটিউব দিয়ে মার্কেটিং করুন। 

তাহলে আপনার পন্যের সেল বেড়ে যাব এবং আপনি অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি ১০$ এর একটি মার্কেটিং ক্যাম্পেইনিং করেন এবং ১০-২০টি অর্ডার পান। তাহলে আপনি প্রতি অর্ডারে ৩% লাভে ৩০-৬০$ আয় করতে পারবেন। এভাবে আপনি অনেক বেশি আয় করতে পারবেন। তবে মনে রাখবেন কাজটি শুরু করার পূর্বে একটি রিসার্চ করা প্রয়োজন। অন্যথায় লোকশান হতে পারে। 

 

শেয়ার মার্কেটে টাকা ইনভেস্ট করে অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করুন

শেয়ার মার্কেটে টাকা ইনভেস্ট করে অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করুন

শেয়ার মার্কেটে টাকা ইনভেস্ট বা ট্রেডিং সম্পর্কে অনেকে জানে। আপনি যদি অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে শেয়ার মার্কেটে টাকা ইনভেস্ট করে প্রচুর টাকা আয় করতে পারবেন। তবে এসব কাজে একটু রিক্স থাকে। আপনি যদি শেয়ার মার্কেটে সঠিকভাবে টাকা ইনভেস্ট করে লাভবান হওয়ার উপায় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে এই পোস্টের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করুন। সেই বিষয়ে খুব তাড়াতাড়ি অন্য আরেকটি আর্টিকেল পোস্ট করা হবে। 

 

পেসিভ ইনকাম ওয়েবসাইট বা অ্যাপ থেকে ফ্রিতে আয় করুন

পেসিভ ইনকাম হলো এমন একটি ইনকামের উপায়ের নাম। যা একবার করে সারা জীবন তার ফল ভোগ করা যাবে। অর্থাৎ একবার ইনভেস্ট বা একবারেই পরিশ্রম করে সারা জীবন আয় করার নামেই হলো পেসিভ ইনকাম। 

সাধারণত পেসিভ ইনকামের অনেক গুলো সেক্টর রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হলো অ্যাডসেন্স। আপনি যদি কোন ধরনের কাজ করা ছাড়াই অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করতে চান। তাহলে কিছু টাকা ইনভেস্ট করে একটি টুলস ওয়েবসাইট বা গেমস ক্রয় করতে পারেন। একটু টুলস ওয়েবসাইট বা গেমস ক্রয় করলে কোন কাজ করা ছাড়াই সেটি থেকে ফ্রিতে  প্রতিমাসে আয় করতে পারবেন। 

নোটঃ

দেখুন আমি আপনাদের সহজ কিছু ১০০% ইনকামের উপায় সম্পর্কে বললাম। হয়ত এটি অনেকের কাছে ভালো নাও লাগতে পারে। তবে এই কয়েটি উপায় হলো অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করার সেরা উপায়। আমি অযথা কোন মিথ্যা বা প্রতারণ মূলক ইনকামের উপায় সম্পর্কে বলব না যে, কাজ না করে সুধু মাত্র এডস এ ক্লিক করে ইনকাম করুন। একাউন্ট তৈরি করে ইনকাম করুন ইত্যাদি। কেননা সময়ে ও পরিশ্রমের মূল্য সবার রয়েছে। তাই আসুন সহজ উপায় না খুঁজে সঠিক উপায় খুঁজে বের করি। তাহলে কাজ করা ছাড়াও অনলাইন থেকে ফ্রিতে টাকা ইনকাম করা সম্ভব হবে। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 Comments

  1. Fantastic beat I would like to apprentice while you amend your web site how could i subscribe for a blog site The account helped me a acceptable deal I had been a little bit acquainted of this your broadcast offered bright clear concept

  2. I enjoyed it just as much as you will be able to accomplish here. You should be apprehensive about providing the following, but the sketch is lovely and the writing is stylish; yet, you should definitely return back as you will be doing this walk so frequently.