অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার নিয়ম ২০২৪

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত জানুন আজকের পোস্টে। এখন আর JSC,SSC কিংবা HSC সার্টিফিকেট সংশোধন করার জন্য আপনাকে বারবার বোর্ড অফিসে কিংবা থার্ড পার্টি কাছে যেতে হবে না। এখন আপনি চাইলে ঘরে বসে আপনার হাতে থাকা স্মাট ফোন দিয়ে অনলাইনে মাধ্যমে আপনার সাটিফিকেটের তথ্যের ভুল, বয়সে ভুল অথবা পিতা-মাতার নামে ভুলসহ সকল কিছু সংশোধন করতে পারবেন অনলাইনের মাধ্যমে। 

 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন প্রথমে আপনার মোবাইল কিংবা কম্পিউটারের ডাটা সংযোগ চালু করুন। তারপর মোবাইল কিংবা কম্পিউটার থেকে যেকোনো একটি ব্রাউজার ওপেন করে সার্চ অপশনে গিয়ে ‘Education board Dhaka’ লিখে সার্চ করুন। আপনার শিক্ষা বোর্ড যদি ভিন্ন হয় তাহলে তা লিখে সার্চ করুন। যেমন: Education board rajshahi, Education board madrasha ইত্যাদি। এখন সার্চ রেজাল্টে আসা প্রথম ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। তাহলে এরকম একটি পেইজ দেখতে পাবেন। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার নিয়ম

সেখান থেকে ‘online application’ অপশনে ক্লিক করুন। এখন আপনার সামনে অনেক গুলো অপশন চলে আসবে সেখান থেকে ‘নাম ও বয়স সংশোধনের আবেদন’ অপশনটিতে ক্লিক করুন। তাহলে আবার ও অনেক গুলো অপশন চলে আসবে সেখান থেকে ‘আবেদন ফর্ম’ অপশন ক্লিক করুন। তাহলে আপনাকে পরবর্তী অপশনে নিয়ে যাবে। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার ওয়েবসাইট

পরবর্তী অপশনে আসার পর সেখানে আপনি অনেক গুলো অপশন দেখতে পাবেন। যেমন:

  • Exam
  • Year
  • Roll No
  • Reg No

প্রথমে exam অপশন দেখতে পাবেন সেখানে আপনি JSC, SSC না HSC সার্টিফিকেট সংশোধন করতে চাচ্ছেন সেটি সিলেক্ট করুন। তারপর Year অপশনে কত সালে পরিক্ষা দিছেন সেটি সিলেক্ট করুন। তারপরে রোল নম্বর এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে ‘Find’ অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে এরকম আরেকটি ইন্টারপেইজ দেখতে পাবেন। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন

এখন আপনি চাইলে একটি আবেদনে JSC, SSC এবং HSC সার্টিফিকেট একসাথে সংশোধন করতে পারবেন। একাধিক সার্টিফিকেট সংশোধনের জন্য বার বার আবেদন করতে হবে না। আপনি যে যে সার্টিফিকেট সংশোধন করতে চান তার নামের আগে থাকা বক্সে টিকমার্ক দিয়ে দিন। তারপর Session সিলেক্ট করুন। তাহলে আপনার সকল তথ্য দেখতে পাবেন।

এখন একটু নিচে গেলে ‘What is required to correct’ একটি অপশন দেখতে পাবেন। সেখান থেকে আপনি কি কি তথ্য পরিবর্তন করতে চাচ্ছেন টিকমার্ক করুন। যেমন: 🔲নাম, 🔲বাবার নাম এবং 🔲মায়ের নাম। বয়স সংশোধন করার ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন আবেদন করতে হবে। অর্থাৎ নাম সংশোধনের জন্য একটি এবং বয়স সংশোধনের জন্য আরেকটি। তবে মনে রাখবেন সুধু মাত্র JSC ও SSC বয়স সংশোধন করা যায় HSC বয়স সংশোধন বা পরিবর্ত করা যায় না। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট ভুল সংশোধন করার নিয়ম

নামের মধ্যে টিকমার্ক করার পর নিচের টেবিল থেকে ‘প্রার্থিত তথ্য’ ঘর গুলো সঠিকভাবে পূরণ করুন। অর্থাৎ Name, Father, Mother অপশনে সঠিক নামটি লিখুন যেটি আপনি সার্টিফিকেটে যুক্ত করতে চাচ্ছেন। 

তারপর ডান পাশের ‘সংযুক্তি’ কলামে আপনার জন্ম সনদ Attach করুন। জন্ম সনদ Attach করার জন্য ‘Attach’ অপশনে ক্লিক করুন এবং আপনার ডিভাইস থেকে PDF জন্ম সনদটি আপলোড করে দিন। pdf ছাড়া অন্য কোন ফরমেট Allow না। তাই অবশ্যই pdf ফাইল Attach করুন।

আরোও পড়ুন: রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড সার্টিফিকেট সংশোধন

জন্ম সনদ PDF করার জন্য প্রথমে ফোনের ক্যামরায় জন্ম সনদের সুন্দর করে একটি ছবি তুলুন। তারপর যেকোন ব্রাউজারে গিয়ে Image to pdf লিখে সার্চ করে যেকোন একটি সাইটে ঢুকে PDF করে নিতে পারবেন। জন্ম সনদ এর pdf কপি Attach করার পর নিচের অপশনে আপনার মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে দিন। 

অবশ্যই আপনার সচল মোবাইল নাম্বারটি দিয়ে দিন যাতে পরবর্তীতে তারা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারে এবং প্রয়োজনীয় SMS পাঠাতে পারে। তারপরে নিচে application fee 500tk সেটি অটোমেটিক বসে যাবে। সর্বশেষ  Applicant Recent Photo অপশনে ক্লিক করে আবেদনকারীর সদ্য তোলা একটি ছবি আপলোড করে Open এ ক্লিক করুন। তাহলে সেটি ও Attach হয়ে যাবে। 

এখন নিচে থেকে ‘Case of correction’ অর্থাৎ   সংশোধনের কারন নির্বাচন করুন। তারপর একটু নিচে গিয়ে ‘🔲 আমি এই মর্মে প্রত্যায়ন করছি যে’ বক্সে টিকমার্ক দিয়ে ‘Submit’ বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে আপনার আবেদনটি Save/Submit হয়ে যাবে। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার প্রক্রিয়া

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন ফি পরিশোধ

এপর্যায়ে Sonali slip সংগ্রহ করে আগামী ৭ দিনের মধ্যে পেমেন্ট পরিশোধ করতে হবে। অন্যথায় আবেদনপত্র বাতিল বলে গণ্য হবে। এখন পেমেন্ট করার জন্য ‘Sonali slip’ অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে পেমেন্ট গেটওয়ে গুলো দেখতে পাবেন। এখন আপনি যদি বিকাশ, রকেট বা নগদের মাধ্যমে পেমেন্ট পরিশোধ করতে চান তাহলে Mobile Banking অপশনে ক্লিক করুন। তাহলে নিচে বিকাশ, রকেট, নগদ দেখতে পাবেন। এখন আপনি যেই মাধ্যমে পেমেন্ট করবেন সেটি সিলেক্ট করুন।

তারপর ‘Pay with Bkash/Rocket/Nagad’ অপশনে ক্লিক করে আপনার একাউন্ট নম্বর দিয়ে ‘Confirm’ অপশনে ক্লিক করুন। তারপর সিমে আসা OTP দিয়ে ভেরিফিকেশন করে Pin দিয়ে ৫০৭.৮৮ টাকা (সার্ভিস চার্জ প্রযোজ্য হবে) পেমেন্ট সম্পন্ন করুন। 

পেমেন্ট করার পর একবার ব্যাকে আসুন। তাহলে ফর্মে Payment status ‘Paid’ দেখতে পাবেন। এখন ‘Print’ অপশনে ক্লিক করে আবেদনটি প্রিন্ট করে নিন। আর যদি হাতের কাছে প্রিন্টার না থাকে তাহলে Print অপশন থেকে Save as PDF সিলেক্ট করে আবেদনপত্রটি Save করে নিন। পরবর্তীতে কম্পিউটার দোকানে গিয়ে প্রিন্ট করে নিন। 

অনলাইনে সার্টিফিকেট সংশোধন করার নিয়ম

আবেদনের ১ থেকে ২ মাস পর কল অথবা SMS এ আপনাকে ইন্টারভিউ বোর্ডে ডাকা হবে। ইন্টারভিউ বোর্ডে যাওয়ার সময় নিম্নে বর্ণীত ডকুমেন্ট গুলো সাথে নিয়ে যাবেন। 

  • আবেদন ফর্ম
  • এফিডেভিট (বয়স সংশোধনের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে)
  • দৈনিক পত্রিকা বিজ্ঞাপন (বিস্তারিত দেখুন)
  • সকল সার্টিফিকেট ও 
  • এডমিট কার্ডের কপি
  • জন্ম সনদ ও জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি
  • পিতা-মাতার NID

সকল ডকুমেন্টস নির্দিষ্ট তারিখে গিয়ে জমা করে আসার পর, তারা সকল তথ্য যাচাই বাছাই করে সংশোধনের যোগ্য মনে করলে আবেদন Approved করে দিবে। তখন নির্দিষ্ট তারিখে গিয়ে সংশোধিত সার্টিফিকেট সংগ্র করতে পারবেন।আর্টিকেল পড়ে বুঝতে সমস্যা হলে এখানে ক্লিক করে ইউটিউবে দেখুন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *